মঙ্গলবার, ০২ মার্চ ২০২১, ০৯:৫৪ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
নাইক্ষ্যংছড়িতে আত্মহত্যা করলো এক জননী রাঙামাটিতে বিদায়ী-নবাগত জেলা প্রশাসককে সংবর্ধনা মানিকছড়িতে ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করলো ১১ বছরে শিশু থানচিতে বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশন পরিচিতি সভা অনুষ্ঠিত পার্বত্য চট্টগ্রামে শিক্ষার মানোন্নয়নে প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে সরকার কাজ করছে- এমপি দীপংকর তালুকদার চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কে ট্রাক চাপায় প্রাণ গেল ২ যুবক, আহত ৩ লামায় শর্ট পিচ ক্রিকেট টুর্ণামেন্ট ফাইনাল অনুষ্ঠিত চিম্বুক পাহাড়ে য়ং ওয়াই ম্রো’র চোখ উপড়ে দিল ভাল্লুক, নাতি আহত রাঙ্গামাটিতে ইউপি সদস্য হত্যার মামলায় জেএসএস’র ১০সহ ১৮জনের বিরুদ্ধে মামলা রাঙ্গামাটি বাঘােইছড়িতে প্রকল্প অফিসে দুর্বৃত্তদের গুলিতে ইউপি মেম্বার নিহত
খাগড়াছড়িতে জাতীয় পুষ্টি সপ্তাহ উপলক্ষে বর্নাঢ্য র‌্যালি ও আলোচনা সভা

খাগড়াছড়িতে জাতীয় পুষ্টি সপ্তাহ উপলক্ষে বর্নাঢ্য র‌্যালি ও আলোচনা সভা

অংগ্য মারমা, খাগড়াছড়ি প্রতিনিধিঃ
“খাদ্যের কথা ভাবলে, পুষ্টির কথাও ভাবুন” প্রতিপাদ্য নিয়ে খাগড়াছড়িতে জেলার পুষ্টি সমন্বয় কমিটি আয়োজনে জাতীয় পুষ্টি সপ্তাহ উপলক্ষে আজ মঙ্গলবার সকালে পৌর টাউন হল প্রাঙ্গণ থেকে বর্নাঢ্য র‌্যালি বের হয়ে শহরে গুরুন্তপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিন করে অফিসার ক্লাবের গিয়ে আলোচনা সভায় অনুষ্ঠিত হয়।

উক্ত আলোচনা সভায় সিভিল সার্জন কার্যালয়ে সিনিয়র স্বাস্থ্য শিক্ষা কর্মকর্তা মেমং মারমা সঞ্চালনায় খাগড়াছড়ি জেলা প্রশাসক শহিদুল ইসলাম সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, খাগড়াছড়ি সিভিল সার্জন জনাব মো: ইদ্রিস মিঞা, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এমএম সালাহ উদ্দিন, ইউএনএসপি খাগড়াছড়ি সদর কর্মকর্তা উচসিং মারমা ও খাগড়াছড়ি সদর আধুনিক হাসপাতালে আরএমও নয়নময় ত্রিপুরাসহ সরকারী ও বেসকারী এনজিও সংস্থা উধ্বর্তন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

খাগড়াছড়ি সিভিল সার্জন জনাব মো: ইদ্রিস মিঞা বক্তব্যে বলেন, জাতীয় পুষ্টি সপ্তাহ ২৩ থেকে ২৯ এপ্রিল পর্যন্ত নয়টি উপজেলার ভিত্তিক জাতীয় পুষ্টি সপ্তাহ পালন করা হবে। তিনি আরো বলে খাগড়াছড়ি পাহাড়ী এলাকায় যথেষ্ট আয়োডিন যুক্ত পানি রয়েছে। পানি পান করে নারী ও পুুরুষ আয়োডিন পাচ্ছে। দেশের প্রতিটি নাগরিককে জাতীয় সম্পদ হিসেবে গড়ে তুলতে নারী-পুরুষ ও শিশুদের জন্য মান সম্পন্ন পুষ্টি নিশ্চত করা জরুরি। এজন্য খাদ্যের সঙ্গে পুষ্টির কথা ভাবতে হবে।

জেলা প্রশাসক শহিদুল ইসলাম বক্তব্যে বলেন, প্রতিটি খাবার পরিস্কার পরিচ্ছন্নতা আছে কিনা দেখে খাবার খেতে হবে। মানুষ খাবার প্রতি সচেতনতায় বৃদ্ধি পেয়েছে। তাই বর্তমানে দেশে পুষ্টিহীনতায় শিশু-মাতৃ মৃত্যুহার কমেছে। তবে এখনোও দূর্গম পাহাড়ী এলাকায় পুষ্টি খাবারে সচেতনতায় অভাব রয়েছে। সেসব এলাকায় দায়িত্ব মাঠ কর্মকর্তারা গ্রামে গিয়ে উঠান বৈঠক মাধ্যমে সচেতনতা বিষয়ে বেশী করে আলোচনা করতে হবে।

ভালো লাগলে সংবাদটি শেয়ার করুন....

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2018 Bandarban Pratidin.com
Design & Developed BY CHT Technology