মঙ্গলবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২০, ১১:৪১ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
লামায় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে দুর্যোগে ঝুঁকি হ্রাস ও নিরাপত্তা প্রশিক্ষণ আ.লীগের নেতা হত্যার প্রতিবাদে রুমায় বিক্ষোভ কোটি টাকার ইয়াবাসহ নাইক্ষ্যংছড়ির দুই মাদক পাচারকারী আটক নাইক্ষ্যংছড়ির এলেক্ষ্যং একটি সড়ক উন্নয়নে পাল্টে যাচ্ছে ১০ গ্রামের জীবনের-মান হত্যার তালিকায় রয়েছে আওয়ামীলীগ নেতা বাচনু মারমা- বিক্ষোভ সমাবেশে বান্দরবান জামছড়িতে গুলিতে আওয়ামীলীগ নেতা নিহত, আহত ৫ থানচিতে ভাষা শহীদদের বিনম্র শ্রদ্ধা জ্ঞাপন ভাষা শহীদদের স্মরণে রাঙ্গামাটিতে শহীদ মিনারে গুর্খা সম্প্রদায়ের বিনম্র শ্রদ্ধাঞ্চলি পরকীয়া সন্দেহে এক নারীকে পিটিয়ে হত্যা। আটক-১ রোয়াংছড়িতে প্রায় সাড়ে ৮ কোটি টাকার উন্নয়ন কাজের উদ্বোধন করলেন পার্বত্য মন্ত্রী
থানচিতে তামাক ছেড়ে বাদাম চাষে ঝুকছে

থানচিতে তামাক ছেড়ে বাদাম চাষে ঝুকছে

বিশেষ রিপোর্টঃ
বান্দরবান পার্বত্য জেলায় বিশেষ করে লামা, নাইক্ষ্যংছড়ি ও আলীকদমে ব্যাপাক আকারে তামাক চাষে ঝুকছে। তবে এর ভিন্ন চিত্র দেখা গেছে থানচি উপজেলাতে। সম্প্রতি তামাক চাষ থেকে বেরিয়ে এসেছে কয়েক বছর ধরে, এখন বাদাম চাষে ঝুকছে। সঙ্খ নদীর তিরে দুই ধারে থানচি থেকে বড় মদোক পর্যন্ত চোখ জুড়ানো সবুজ গাছে বাদাম খেট ভরে গেছে, এতে কমছে তামাক চাষ। যেন নতুনভাবে প্রাণ ফিরে পেয়েছে থানচির প্রাকৃতিক পরিবেশ।

সরজমিনে গিয়ে স্থানীয় চাষিদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, তামাক ছেড়ে বাদাম চাষ করছে তিন থেকে চার বছর ধরে। এর আগে থানচিতে ব্যাপক হারে তামাক চাষ হত। তামাক চাষে এমনভাবে ঝুকে ছিল বলার মতো নয়। লোন নিয়ে বা বিভিন্ন ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে টাকা ধার করে তামাক চাষ করতো। প্রথম প্রথম যখন থানচি উপজেলায় তামাক চাষ শুরু হয় তখন ভালো একটা অর্থ লাভ হতো। এভাবে একজন থেকে আরেকজন দেখে তামাক চাষে আগ্রহ বাড়ে এবং তামাক চাষে ঝুকে। পরবর্তী কয়েক বছর পর দেখা গেল ভালো মানের তামাকের পাতা আনার পর কোম্পানিরা এ গ্রেডকে বি গ্রেড, বি গ্রেডকে সি এবং সি গ্রেডকে ডি গ্রেড করে ফেলে। এতে চাষিরা ব্যাপক আকারে আর্থিক ক্ষতির সম্মুখে পরে। এভাবে কয়েক বছর চলার পর লাভের মুখ দেখতে না পেয়ে তামাক চাষে প্রতি আগ্রহ হারিয়ে ফেলে। ফলে বাদাম চাষে ঝুকে পরে। ভালো দাম পাওয়ায় এখন বাদাম চাষ করে সাফল্যের হাসি ফুটছে চাষিদের মুখে।

তামাক চাষি হ্নাংমেউ মারমা সাথে কথা বলে সে জানায়, আমার স্বামী এখন বিদেশে থাকে। কয়েক বছর আগে আমরা মহাজনের কাছ থেকে টাকা ধার করে তামাক চাষ করতাম। খুব শক্ত একটা কাজ। পরিবারের ছেলে মেয়েদেরকে এই কাজে যুক্ত করতাম। যে কয়েক বছর তামাক চাষ করেছি শুধু লোকসানে মুখে পরেছি। এক বছর দুই বছর চাষ করতে করতে লাভ দুরের কথা আসল টাকা পরিশোধ করতে পারলাম না। শেষে উপায় না দেখে স্বামীকে মালয়শিয়া যেতে বাধ্য হয়। তামাক চাষের জন্য যে টাকাগুলো ধার নিয়েছি, সেসব টাকা এখন প্রতিমাসে পরিশোধ করছি।

থানচি উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মোঃ ওমর ফারুক (অতিরিক্ত) বান্দরবান প্রতিদিনকে বলেন, তামাক ছেড়ে বাদাম চাষে এগিয়ে আসায় বিপ্লব ঘটেছে। তারা এখন বুঝতে পেরেছে কোনটা ভালো কোনটা খারাপ তায় আমরা সাধুবাদ জানায়। আমরা সর্বদায় চাষিদের সার্বিক সহযোগিতা করছি। সেই সাথে ফসলের বৈচিত্র্য আনার লক্ষ্যে চিনা বাদামের পাশাপাশি সাকসবজির চাষেও সহযোগিতা করা হচ্ছে।

শেষে তিনি বলেন, গত বছর তামাক চাষ হয়েছিল ৩২০ হেক্টর। তা এবার কমিয়ে ৭০ হেক্টরে তামাক আবাদ হচ্ছে। ১৩০ হেক্টর চিনা বাদাম আবাদ হয়েছে। এবছর বৃদ্ধি হয়ে ২৭০ হেক্টর চিনাবাদাম আবাদ হয়েছে। আমরা আশা করছি এবারে ৬শ মেট্রিক টনের মতো বাদামের ফলন পাবো। শুধু থানচি নয় লামা, আলীকদম ও নাইক্ষ্যংছড়িতেও তামাক চাষ কমিয়ে আনার জন্য চাষিদেরকে উদ্ভুক্ত করা হচ্ছে।

থানচি উপজেলা চেয়ারম্যান থোয়হ্লামং বলেন, স্থানীয় চাষিদের সচেতনতার ফলে তামাক চাষ থেকে মুখ ফিরেছে। থানচির প্রাকৃতিক পরিবেশ ও তামাক চাষিদের স্বাস্থ্য ঝুকি হ্রাস পেল। বাদাম চাষে আরো বেশি উৎসাহ বাড়াতে ব্যাংক থেকে বেশিকরে চাষিদেরকে লোণ দিয়ে এগিয়ে আসা দরকার। সেই সাথে উপজেলা প্রশাসন সবসময় চাষিদের পাশে রয়েছে।

থানচি উপজেলা ইউএনও আরিফুল হক মৃদুল জানান, আমরা প্রতি বছর কৃষকদের কৃষি প্রণোদনা দিচ্ছি। প্রতি বছর আমরা কৃষকদেরকে ভালো মানের বীজ সার দিয়ে উৎসাহ অব্যাহত রেখেছি। এখন চাষিরা বুঝতে পেরেছে তামাক চাষে আর লাভোবান হচ্ছে এবং স্বাস্থ্য ঝুকি রয়েছে। সরকার কৃষকের পাশে রয়েছে।

ভালো লাগলে সংবাদটি শেয়ার করুন....

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2018 Bandarban Pratidin.com
Design & Developed BY CHT Technology
error: Content is protected !!