মঙ্গলবার, ২৪ নভেম্বর ২০২০, ০৩:৩৬ পূর্বাহ্ন

নাইক্ষ্যংছড়ির তুমব্রু সীমান্তের জিরো লাইন থেকে রোহিঙ্গাদের সরিয়ে যেতে মাইকিং মিয়ানমারের সেনাবাহিনী

নাইক্ষ্যংছড়ির তুমব্রু সীমান্তের জিরো লাইন থেকে রোহিঙ্গাদের সরিয়ে যেতে মাইকিং মিয়ানমারের সেনাবাহিনী

রিমন পালিত,স্টাফ রির্পোটারঃ
বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার তুমব্রু সীমান্তের নো-ম্যান্স ল্যান্ডে অবস্থানকারী রোহিঙ্গাদের সেখান থেকে সরে যেতে আবারো মাইকিং শুরু করেছে মায়ানমারের সেনাবাহিনী। তুমব্রু খালের পাহাড়ি ঢল থেকে বাঁচতে রোহিঙ্গারা নোম্যান্স ল্যান্ডে নতুন করে মাচান ঘর তৈরী শুরু করার পর মিয়ানমারের সেনাবাহিনী কাটাতারের বেড়ার কাছে মাইকিং করছে।

আজ শনিবার সকাল থেকে সীমান্তের কাটা তারের বেড়া ঘেষে সেনা সদস্যদের পাহাড়ার মধ্যে কয়েক দফা মাইকিং করা হয়। মাইকিং এ অবস্থানরত রোহিঙ্গাদের সেখান থেকে সরে গিয়ে অন্য জায়গায় আশ্রয় নিতে বলছে মায়ানমারের সেনাবাহিনী।

এদিকে সীমান্তে সেনা টহলও বাড়ানো হয়েছে। হঠাৎ করে সেনা টহল ও মাইকিং নিয়ে জিরো লাইনে অবস্থারত রোহিঙ্গারা আতংকের মধ্যে রয়েছে। প্রায় দু মাস বন্ধ থাকার পর মায়ানমার আবারো নো ম্যান্স ল্যান্ডে অবস্থানকারী রোহিঙ্গাদের এলাকা ছেড়ে চলে যাওয়ার জন্য মাইকিং শুরু করেছে। বর্তমানে প্রায় ৫ হাজার রোহিঙ্গা তুমব্রু সীমান্তের নো ম্যান্স ল্যান্ডে অবস্থান করছে। এলাকাটি বর্ষার সময়ে তুমব্রু খালের পানিতে তলিয়ে যাওয়ায় সেখানে গত এক সপ্তাহ থেকে নতুন করে মাচান ঘর তৈরীর কাজ শুরু করেছে রোহিঙ্গারা। এসব ঘর তৈরীতে সহায়তা করছে ঢাকার কিছু সেচ্ছাসেবী সংগঠন ও বিজিবি। তবে নতুন করে ঘর তৈরীর পরই মায়ানমার রোহিঙ্গাদের সরে যেতে মাইকিং করা শুরু করলো।

কক্সবাজার বিজিবির ৩৪ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লেঃ কর্নেল মজ্ঞুরুল হাসান খান জানান, মায়ানমার সীমান্ত হতে মাইকিং করা হলেও বিজিবি সতর্কাবস্থায় রয়েছে। গত আগষ্টে মায়ানমারের রাখাইন রাজ্যে সংঘটিত ব্যাপক সহিংসতায় ৭ লাখেরও বেশি রোহিঙ্গা পালিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়।

এর মধ্যে প্রায় ১৫ হাজার রোহিঙ্গা আশ্রয় নেয় নাইক্ষ্যংছড়ির ঘুনধুম তুমব্রু সীমান্তে। অন্যান্য এলাকার রোহিঙ্গাদের কক্সবাজারের উখিয়ার কুতুপালং শরনার্থী শিবিরে সরিয়ে নেয়া হলেও তুমব্রু সীমান্তের নো ম্যান্স ল্যান্ডে বসবাসকারী ৫ হাজারেও বেশি রোহিঙ্গাদের সরিয়ে নেয়া সম্ভব হয়নি। নো ম্যান্স ল্যান্ড স্পর্স্বকারত এলাকা হওয়ায় বর্তমানে এসব রোহিঙ্গা মানবেতর জীবন যাপন করছে।

ভালো লাগলে সংবাদটি শেয়ার করুন....

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2018 Bandarban Pratidin.com
Design & Developed BY CHT Technology