বুধবার, ২৫ নভেম্বর ২০২০, ১০:২২ অপরাহ্ন

বান্দরবানে রাজার সনদ বাতিলের দাবীতে মানববন্ধন

বান্দরবানে রাজার সনদ বাতিলের দাবীতে মানববন্ধন

রিমন পালিত,ষ্টাফ রির্পোটারঃ
বান্দরবান বোমাং সার্কেল চীফ (বোমাং রাজা) কর্তৃক প্রদত্ত সনদপত্র বাতিল ও ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর সম্প্রদায়ের আদিবাসী স্বীকৃতি আদায়ের অপচেষ্টার প্রতিবাদে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ কর্মসূচী অনুষ্ঠিত হয়েছে।

আজ রবিবার ১২ আগষ্ট সকালে বান্দরবান প্রেসক্লাবের সামনে পার্বত্য নাগরিক পরিষদ ও বাঙালী ছাত্র পরিষদের আয়োজনে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ কর্মসূচী পালন করে।

ঘন্টাব্যাপী এ মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, বর্তমানে বোমাং রাজা বিভিন্নভাবে বাঙ্গালীদের হয়রানী করছে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ভর্তি, চাকুরী, জমি ক্রয়ের ক্ষেত্রে বোমাং রাজার সনদপত্র বাধ্যতামুলক করা হলেও সনদপত্র সংগ্রহ করতে বাঙ্গালীদের অতিরিক্ত টাকা প্রদান করতে হচ্ছে এবং নানাভাবে হয়রানির শিকার হচ্ছে সাধারণ জনগণ।

এসময় বক্তারা আরো বলেন, বান্দরবানে বর্তমানে বোমাং রাজার কারণে হেডম্যানরা জমির প্রতিবেদন প্রদানের নামে জমি বিক্রয় থেকে ৫% টাকা আদায় করছে এবং টাকা না দিলে হেডম্যান প্রতিবেদন প্রদান করছে না। বাংলাদেশের কোথাও স্থায়ী বাসিন্দার জন্য রাজার সনদ নিতে হয় না শুধুমাত্র পার্বত্য এলাকায় এ আইন বৈষম্যমূলক। তাই সংবিধান পরিপন্থী এ প্রথা বাতিলের দাবী জানান তারা।

বোমাং রাজা উচপ্রু জানান, বাঙ্গালী-অবঙ্গালী বলে কথা নয়, যারা রাজার সনদের জন্য আবেদন করে তাদের আবশ্যিক পিতা বা মাতা স্থায়ী জায়গা থাকতে হবে। পার্বত্য জেলা পরিষদ আইনে উল্লেখ আছে। রাঙ্গামাটি,খাগড়াছড়ি থেকেও আমাদের জনগোষ্ঠীরা বান্দরবানে রাজার সনদের জন্য আবেদন করে। বান্দরবানে স্থায়ী জায়গা না থাকলে সেগুলো বাতিল করা হয়। তবে আমাদের জনবল কমটি রয়েছে। তাই কিছু সনদ জমা রয়েছে আমরা কয়েক দিনের মধ্যে দিয়ে দেওয়া চেষ্টা করছি।

যারা আজকে রাজার সনদের বিরুদ্ধে মানববন্ধর করছে তারা কোন যুক্তিতে করছে আমার জানা নেয়। যদি কেউ রাজার সনদ না পেয়ে থাকে তাহলে সরাসরি আমার সাথে যোগাযোগ করতেও পারে।

এসময় মানববন্ধনে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন, পার্বত্য বাঙ্গালী ছাত্র পরিষদের সভাপতি মো:মিজানুর রহমান,নাগরিক পরিষদের আহবায়ক মো:আতিকুর রহমান,বাঙ্গালী ছাত্র পরিষদের সাবেক সভাপতি কামরান ফারুক ও এইচ এম সম্রাট।

মানববন্ধন শেষে একটি প্রতিবাদ মিছিল শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিন শেষে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে গিয়ে শেষ হয়, পরে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ মিছিলে অংশ নেয়া সকলে জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর বরাবরে একটি স্মারকলিপি প্রদান করে।

ভালো লাগলে সংবাদটি শেয়ার করুন....

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2018 Bandarban Pratidin.com
Design & Developed BY CHT Technology