শুক্রবার, ০৩ Jul ২০২০, ০৩:৪০ অপরাহ্ন

বান্দরবানে ২১দিনের কঠোর লকডাউনে বিপাকে পড়েছে বিক্রেতারা

বান্দরবানে ২১দিনের কঠোর লকডাউনে বিপাকে পড়েছে বিক্রেতারা

নিজস্ব সংবাদদাতাঃ
করোনা সংক্রমণ রোধে লকডাউনে বান্দরবান সদর উপজেলা। গতকাল ২৪ জুন বুধবার রাতে প্রশাসনের ২১দিনের কঠোর লকডাউন ঘোষণা করা হয়। রাতেই পৌর এলাকায় মাইকিং এর মাধ্যমে প্রচার করলেও শহরে আশপাশে বিভিন্ন এলাকায় প্রশাসনের প্রচার না পৌছানোর কারনে দুর দুরান্ত থেকে আসা সবজি ও ফলমুল বিক্রেতারা বড় বিপাকে পড়েছে।

আগে লকডাউন চলাকালিন সময়ে রবিবার ও বৃহস্পতিবার দুই দিন কাঁচা বাজার ও মাছের বাজার খোলা থাকত। আজ ২৫জুন বৃহস্পতিবার ভোর সকাল থেকে বিভিন্ন গ্রাম ও এলাকা থেকে আসা বিক্রেতারা কঠোর লকডাউনের কারনে পুলিশ তাদেরকে ধাওয়া করে। এসময় পণ্যগুলো ঠায় হয় শঙ্খ নদীর চড়ে, তড়িঘড়ি করে তারা কম দামে ব্যাপারিদের কাছে বিক্রি করতে হয়েছে বলে এমন অভিযোগ করেছে বিক্রেতার।

বেতছড়া পাড়া থেকে সবজি বিক্রি করতে আসা মেপ্রুমা মারমা জানান, প্রশাসনের নিদের্শ আমরাতো জানিনা। এ ব্যাপারে কেউ কিছুই বলেনি। এমন সময়ে সংসার চালাতে হিমসিম খাচ্ছি। দুই টাকা লাভের আশায় সকালে বাজারে আসার পর পুলিশের ধাওয়া খেয়ে শঙ্খ নদীর চড়ে বসে আছি। আজকে বোটের খরচও উঠবেনা। বাজারে কিছু জিনিস বিক্রি করে পরিবারের জন্য সাপ্তাহিক বাজার করে নিয়ে যেতে পারলাম না।

আরেক বিক্রেতা কাট্টালি পাড়া বাসিন্দা মং প্রু বলেন, আজকে এমন হবে, আমরা জানতাম না। জানলে আসতাম না। কঠোর লকডাউন হয়েছে কেউতো কিছুই বলেনি। নদীর চড়ে বিক্রি করে যা পেয়েছি সেটি নিয়ে চলে যাচ্ছি। বান্দরবান শহরে হাট বাজারে উপর নির্ভর করে সংসারে অর্থের চাকা ঘুরে। প্রশাসনের যে কোন ঘোষণা বা নিদের্শণা তৎক্ষণাত পাহাড়ি এলাকায় পৌছানোর ব্যবস্থা করলে এমন অবস্থা হত না।

এই বিষয়ে পৌর মেয়র ইসলাম বেবীকে মুঠো ফোনে যোগাযোগ করেও ফোনে পাওয়া যায়নি।

ভালো লাগলে সংবাদটি শেয়ার করুন....

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2018 Bandarban Pratidin.com
Design & Developed BY CHT Technology

করোনা ভাইরাস (কোভিড-১৯)

করোনা ভাইরাস তথ্য