বুধবার, ২৫ নভেম্বর ২০২০, ১০:৩৯ অপরাহ্ন

বান্দরবানে যৌথ বাহিনীর সাথে সশস্ত্র সন্ত্রাসী গ্রুপের গুলি বিনিময়; নিহত ১

বান্দরবানে যৌথ বাহিনীর সাথে সশস্ত্র সন্ত্রাসী গ্রুপের গুলি বিনিময়; নিহত ১

আব্দুর রশিদ; নাইক্ষ্যংছড়ি(বান্দরবান) প্রতিনিধি:
বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার লেমুছড়ি সীমান্তে একটি সশস্ত্র সন্ত্রাসী গ্রুপের সাথে যৌথ বাহিনীর সংঘর্ষে এক সন্ত্রাসী নিহত ও বিপুল অস্ত্র, গোলাবারুদ সহ চাঁদা উত্তোলনের টাকা উদ্ধার করা হয়েছে।

আজ বুধবার সকাল পোনে ১১ টার দিকে মায়ানমার সীমান্তের কাছে এ ঘটনা ঘটে। নিহত সন্ত্রাসীর নাম জ্ঞান শংকর চাকমা (৪৫)। তার বাড়ি রাঙ্গামাটি জেলায়। সে ঐ এলাকার প্রধান অর্থ সংগ্রহক বলে জানা গেছে। এ ঘটনার পর ঐ এলাকা থেকে ৭টি এসএমজি, ১১টি ম্যাগজিন, ৪৩৭ রাউন্ড অস্ত্রের গুলি ও ৪ লক্ষ ৩৬ হাজার টাকা উদ্ধার করা হয়েছে। চট্রগ্রামের র‌্যাব ৭ এর একটি দল কৌশলে এ অভিযান চালায়। অভিযানে সহায়তা করে সেনাবাহিনী বিজিবির সদস্যরা।

র‌্যাব ৭ এর অধিনায়ক লেঃ কর্নেল মিফতা উদ্দিন আহম্মদ জানান গত ১৮ মার্চ রাঙ্গামাটির বাঘাইছড়িতে নির্বাচনী দায়িত্ব শেষে ফেরার পথে গাড়িতে সন্ত্রাসী হামলায় ৭ জন নিহত হওয়ার ঘটনার পর ঐ সন্ত্রাসী গ্রুপটি বান্দরবান সীমান্তে গা ঢাকা দেয় এমন খবর ছিল যৌথ বাহিনরি কাছে। সন্ত্রাসী গ্রুপটি মায়ানমার সীমান্ত থেকে অস্ত্র সংগ্রহ করে বান্দরবানের লেমুছড়ি সীমান্ত দিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করার সময় যৌথ বাহিনীর সাথে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে ঘটনাস্থলে জ্ঞান শংকর চাকমা নামের এক সন্ত্রাসী গুলিবিদ্ধ হয়ে নিহত হয়। অন্য সন্ত্রাসীরা গুলির মুখে পালিয়ে গেলেও ঘটনাস্থল থেকে ৭টি এসএমজি, ম্যাগজিন, গুলি ও চাঁদার টাকা উদ্ধার করা হয়। উদ্ধারকৃত অস্ত্রের মধ্যে রয়েছে ১টি ৫.৫৬ এমএম এসএমজি, ৫টি ৯ এমএম এসএমজি ও ১টি একে ৩২ এসএমজি। সাথে রয়েছে ১১টি অস্ত্রে¿র ম্যাগজিন, ৪৩৭ রাউন্ড উদ্ধারকৃত অস্ত্রের গুলি ও ৪ লক্ষ ৩৬ হাজার নগদ টাকা।
এ ঘটনার পর ঐ এলাকাটি যৌথ বাহিনী ঘিরে রেখেছে। সীমান্তে অভিযান চালাচ্ছে যৌথ বাহিনীর সদস্যরা। সন্ত্রাসীরা যাতে সীমান্ত পর হয়ে মায়ানমারে প্রবেশ করতে না পারে সে জন্য গুরুত্বপূর্ন পয়েন্টগুলোতে টহল বাড়ানো হয়েছে বলে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তরা জানিয়েছেন।

সেনাবাহিনীর বান্দরবান রিজিয়নের অধিনায়ক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল খন্দকার শাহিদুল এমরান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান সেনাবাহিনী র‌্যাব বিজিবি সদস্যরা যৌথ ভাবে সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে অভিযান চালিয়েছে। রাঙ্গামাটির বাঘাইছড়ির হত্যাকান্ডর সাথে জড়িত সন্ত্রাসীরা সীমান্তে অবস্থান নেয়ার পর সেখানে অভিযান চালানো হয়।
উল্লেখ্য গত ১৮ মার্চ রাঙ্গামাটির বাঘাইছড়ির সাজেক থেকে নির্বাচনী কাজ শেষে প্রিসাইডিং অফিসারসহ অন্যান্যরা খাগড়াছড়ি ফেরার পথে একদল সন্ত্রসী গাড়ি বহরে ব্রাশ ফায়ার করে। এতে প্রিসাইডিং অফিসারসহ ৭ জন হিত হয়। হামলাকারী সন্ত্রাসী গ্রুপটি পাালিয়ে বান্দরবান সীমান্তে অবস্থান নিলে তাদের সাথে বুধবার এই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে বলে নিরাপত্তা বাহিনীর সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা জানিয়েছেন।

ভালো লাগলে সংবাদটি শেয়ার করুন....

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2018 Bandarban Pratidin.com
Design & Developed BY CHT Technology