বুধবার, ২৫ নভেম্বর ২০২০, ১০:৩০ অপরাহ্ন

মনে হচ্ছিল মিরপুর বা চট্টগ্রামে চলে এসেছি: রস টেইলর

মনে হচ্ছিল মিরপুর বা চট্টগ্রামে চলে এসেছি: রস টেইলর

ক্রীড়া ডেস্ক,

নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে বিশ্বকাপে নিজেদের ২য় ম্যাচে জয়ের খুব কাছে গিয়েও ফেরত এসেছে বাংলাদেশ। তবে পুরোটা সময় জুড়ে দর্শকদের দারুণ সমর্থন পেয়েছেন মাশরাফী, সাকিবরা।

লন্ডনের ওভালে এটি ২য় ম্যাচ ছিল টাইগারদের। নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ২ উইকেটে হেরেছে মাশরাফী বিন মোর্ত্তজার দল। টস জিতে শুরুতে ব্যাট করতে নেমে বাংলাদেশ তোলে ২৪৪ রান। তবে ১৭ বল হাতে রেখে জয়ী হয় নিউজিল্যান্ড।

তবে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে প্রথম ম্যাচের মতো এদিনও গ্যালারির বেশিরভাগ জায়গা দখল করে বাংলাদেশের সমর্থকরা। ঈদের পরদিন হওয়ায় প্রবাসী বাংলাদেশিদের মধ্যে ছিল বাড়তি উৎসাহ-উদ্দীপনা।

সমর্থকরা জানান, ‘গতকাল আমাদের ঈদ হয়েছে, তবে আজকে জিতেই ঈদ উদযাপন করবো আমরা।’

প্রায় ২৫ হাজার ধারণক্ষমতার স্টেডিয়ামে ছিল দর্শকদের উপচে পড়া ভিড়। আর এর মধ্যে বাংলাদেশি ছিলেন হাজার বিশেক। পুরো ম্যাচে গলা ফাটিয়ে সমর্থন দিয়ে গেছেন প্রিয় দলকে।

সাকিবের ফিফটি যেমন উদযাপন করেছেন চেঁচিয়ে, তেমনি আউটে হতাশা আর আফসোসের শব্দই বেশি শোনা গিয়েছে দ্য ওভাল ক্রিকেট গ্রাউন্ডে। প্রায়ই এই লন্ডনের গ্যালারিতে দেখা মিললো বাংলাদেশিদের মেক্সিকান ওয়েভ। ম্যাচ জিতলেও তাই সমর্থকদের কাছে সংখ্যায় হারতেই হয়েছে নিউজিল্যান্ডকে।

খেলে শেষে সংবাদ সম্মেলনে এসে নিউজিল্যান্ডের ম্যাচ জয়ের নায়ক রস টেইলর বলতে বাধ্য হলেন, ‘মনেই হয়নি ওভালে খেলছি। যেন মনে হচ্ছিল ঢাকার মিরপুর বা চট্টগ্রামে চলে এসেছি।’

একইসঙ্গে বাংলাদেশের দর্শকদের ক্রিকেট প্রেমের প্রশংসাই করেছেন এই কিউই ব্যাটসম্যান। স্পিনার মিচেল স্যান্টনারও বলছিলেন মাঠে তাকে বাংলাদেশের ক্রিকেটার ও সমর্থক দুটোর সঙ্গে লড়তে হয়েছে।

স্যান্টনার বলেন, ‘বাংলাদেশের ফ্যান এখন সবখানে, তবে আজ মনে হয়েছে আমরা অ্যাওয়ে টিম। দেখুন তারা ক্রিকেট ভালোবাসে, খেলার সঙ্গে যুক্ত হতে চায়, বিশেষ করে যখন ভালো অবস্থানে থাকে, চিৎকারটাও বেশি হয়। আর কানের কাছে এরকম চিৎকার চলতে থাকলে অবশ্যই খেলায় সেটার একটা প্রভাব পড়ে।’

নি:সন্দেহে বাংলাদেশ দলের জন্য একটা একটা দারুণ পাওয়া। বিদেশে এমন সমর্থন উজ্জীবিত করছে পুরো দলকেই। মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত বলেন, ‘আমরা শেষ দুটো ম্যাচ ওভালে না মনে হল মিরপুরে খেলেছি। আজকে তো আমরা ভালোই খেলেছি, আর এরকম সমর্থন থাকলে, আশা করি এই বিশ্বকাপে আরো ভালো কিছু করবো।’

তবে বাংলাদেশের সমর্থকদের বড় চ্যালেঞ্জের মুখে পড়তে হতে পারে পরের ম্যাচেই। ৮ই জুন তাদের ৩য় ম্যাচ যে এবার স্বাগতিক ইংল্যান্ডের বিপক্ষেই।

সূত্র: ঢাকাটাইমস

ভালো লাগলে সংবাদটি শেয়ার করুন....

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2018 Bandarban Pratidin.com
Design & Developed BY CHT Technology