বৃহস্পতিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২১, ০২:৪৪ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
রাঙ্গামাটি বাঘােইছড়িতে প্রকল্প অফিসে দুর্বৃত্তদের গুলিতে ইউপি মেম্বার নিহত বন্য হাতির আক্রমণে লামায় যুবতির মৃত্যু ধর্ষণ মামলায় রাঙ্গামাটিতে ইউপি চেয়ারম্যান  কারাগারে  থানচিতে হিউমেনিটারিয়ান ফাউন্ডেশন গরীব প্রশিক্ষণার্থীদের মাঝে বিনামূল্যে বিভিন্ন সামগ্রী বিতরণ বান্দরবান সেনাবাহিনী বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা প্রদান সাংবাদিক বোরহান উদ্দিন মুজাক্কির হত্যার প্রতিবাদে লামায় মানববন্ধন থানচিতে যথাযোগ্য মর্যাদায় শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত বান্দরবানে একুশে ফেব্রুয়ারি উদযাপন টানা ছুটিতে বান্দরবানে পর্যটন স্পটগুলোতে পর্যটকদের ঢল সাজেকে মালবাহী ট্রাক উল্টে আহত-৭
হেডম্যানডের স্থায়ী নিয়োগ ও রাজস্বভূক্ত করনে প্রতিবাদ জানিয়েছে বান্দরবান হেডম্যান এসোসিয়েশন

হেডম্যানডের স্থায়ী নিয়োগ ও রাজস্বভূক্ত করনে প্রতিবাদ জানিয়েছে বান্দরবান হেডম্যান এসোসিয়েশন

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ
১৯০০ সালের পার্বত্য চট্টগ্রাম শাসন বিধির ৪১ (ক) ধারায় স্বীকৃতি রয়েছে। ১০৯টি মৌজা এবং ১০৯ জন হেডম্যান নিয়ে বান্দরবান বোমাং সার্কেল গঠিত। হেডম্যানরা মৌজার শান্তি শৃঙ্খলা রক্ষা,ভূমি ব্যবস্থাপনা, রাজস্ব আদায় ও সামাজিক বিচারে গুরুত্বপূর্ণ ভ’মিকা পালন করে আসছে। তা এখনো চলমান রয়েছে।

ঢাকায় জেলা প্রশাসক সম্মেলনে মৌজা প্রধান হেডম্যানদের স্থায়ী নিয়োগ ও রাজস্বভ’ক্ত পদায়নের প্রস্তাবনার প্রতিবাদ এবং বাতিলের দাবিতে, আজ রোববার ২৪ শে জুন সকাল ১১ ঘটিকার সময় জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সামনে একটি মানবন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। বান্দরবান বোমাং সার্কেলের হেডম্যান এসোসিয়েশন-এর উদ্যোগে এই মানবন্ধনটি পালন করা হয়। এতে সাত উপজেলা হেডম্যানরা অংশ গ্রহন করেন।

স্বারকলিপিতে উল্লেখ করেন, ২০১৭ সালে জেলা প্রশাসক সম্মেলনে পার্বত্য চট্টগ্রামে মৌজা প্রধান হেডম্যানদের রাজস্বভূক্ত করার দাবি জানিয়েছিল জেলা প্রশাসকরা। এছাড়া হেডম্যানদের বদলি এবং পদায়নের দাবিও করা হয়েছিল এ সম্মেলনে। যা পার্বত্য চুক্তির আলোকে প্রণীত পার্বত্য চট্টগ্রাম আঞ্চলিক পরিষদ আইন ১৯৯৮ , তিন পার্বত্য জেলা পরিষদ আইন ১৯৯৮ এ স্বীবৃত আইনকে লংঘন করা হয়েছে এবং ১৯০০ সালের শাসনবিধির সাথে সামঞ্জস্যপূর্ন নয়। এসব সিদ্ধান্ত নেয়ারা আগে তিন পার্বত্য জেলা হেডম্যান এসোসিয়েশন সাথে কোন ধরনের সংলাপ বা আলোচনা করা হয়নি বলে উল্লেখ করেন।

মানববন্ধন কর্মসূচিতে হেডম্যানরা বলেন, প্রথাগত আইন পাশ কাটিয়ে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হলে পাহাড়ে ভূমি জটিলতা বাড়বে। সামাজিক আচার-অনুষ্ঠান এবং বিচার-ব্যবস্থায়ও বিশৃঙ্খলা বাড়বে। মানববন্ধন কর্মসূচি শেষে জেলা প্রশাসকের বরবরে একটি স্মারকলিপি দেওয়া হয়।

আরো বক্তব্য রাখেন হেডম্যান এসোসিয়েশন সভাপতি সাশৈপ্রু, সাধারণ সম্পাদক টিমংপ্রু এবং সাংগঠনিক সম্পাদক মংনু মারমা।

ভালো লাগলে সংবাদটি শেয়ার করুন....

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2018 Bandarban Pratidin.com
Design & Developed BY CHT Technology