মঙ্গলবার, ০৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ১১:৫১ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
নাইক্ষ‍্যংছড়ি ১১বিজিবির ৪দিনের অভিযানে ৭০ লাখ  টাকার  বিদেশি গরু আটক শূন্যরেখায় ১৮৬ জন রোহিঙ্গাদেরকে কুতুপালং পার্শ্বে ট্রানজিট ক্যাম্পে হস্তান্তর  থানচিতে দুই নৌকা মুখোমুখি সংঘর্ষে চালক নিহত নাইক্ষ‍্যংছড়ি সীমান্ত এলাকা পরিদর্শন করলেন বিজিবির মহাপরিচালক   নাইক্ষ্যংছড়িতে খালের পানি শুকিয়ে এখন ধান চাষ হচ্ছে নাইক্ষ্যংছড়িতে বন্য হাতির আক্রমণে এক কৃষকের মৃত্যু র‌্যাবের অভিযানে দুই জঙ্গি গ্রেপ্তারের ঘটনায় নাইক্ষ্যংছড়ি থানায় মামলা নাইক্ষ্যংছড়ি বাজারে মোবাইল কোর্ট পরিচালনায় ২জনকে জরিমানা! পলিথিন জব্দ থানচিতে গণসংবর্ধনা পেল সংনং ম্রো রোহিঙ্গা ক্যাম্প থেকে সামরিক শাখার প্রধান রনবীর ও বোমা বিশেষজ্ঞ বাশারকে অস্ত্রসহ আটক
র‌্যাবের অভিযানে দুই জঙ্গি গ্রেপ্তারের ঘটনায় নাইক্ষ্যংছড়ি থানায় মামলা

র‌্যাবের অভিযানে দুই জঙ্গি গ্রেপ্তারের ঘটনায় নাইক্ষ্যংছড়ি থানায় মামলা

নাইক্ষ্যংছড়ি  প্রতিনিধিঃ
কক্সবাজারের কুতুপালং রোহিঙ্গা ক্যাম্প সংলগ্ন এলাকা থেকে গ্রেপ্তার জঙ্গি সংগঠন ‘জামাতুল আনসার ফিল হিন্দাল শারক্বীয়া’র দুই নেতার বিরুদ্ধে বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি থানায় মামলা হয়েছে। মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন নাইক্ষ্যংছড়ি থানার অফিসার ইনচার্জ  ওসি টান্টু সাহা।
 তিনি জানান, মঙ্গলবার সকালে র‍্যাব-১৫ কক্সবাজার ব্যাটালিয়নের এক সদস্য বাদি হয়ে আটককৃত দুই জঙ্গি সদস্যের নাম উল্লেখ এবং অজ্ঞাত পরিচয় আরও পাঁচজনকে আসামি করে সন্ত্রাস বিরোধী আইনে মামলাটি দায়ের করেন। মামলাটি নথিভুক্ত করার পর আাসামিদের বান্দরবান আদালতে পাঠানো হয়েছে।
আটককৃত  আসামিরা হলেন- জঙ্গি সংগঠনটির শুরা সদস্য ও সামরিক শাখার প্রধান রণবীর ওরফে মাসুদ এবং তার সহযোগী ‘বোমা বিশেষজ্ঞ’ আবুল বাশার ওরফে আলম।
সোমবার (২৩ জানুয়ারি)  ভোর থেকে কুতুপালং ক্যাম্প সংলগ্ন এলাকায় জঙ্গিদের সঙ্গে র‌্যাবের গোলাগুলির পর ওই দুইজনকে গ্রেপ্তার এবং তাদের কাছ থেকে দেশি ও বিদেশি অস্ত্র এবং গোলাবারুদ উদ্ধারের কথা জানায় র‌্যাব। পরে গ্রেপ্তার জঙ্গি সংগঠনের দুই সদস্যকে নাইক্ষ্যংছড়ি থানায় হস্তান্তর করা হয়।
ওসি টান্টু সাহা বলেন, অভিযানস্থল উখিয়া উপজেলার কুতুপালং এলাকায় হলেও অস্ত্র উদ্ধার এবং জঙ্গি সংগঠনের সদস্যদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে নাইক্ষ্যংছড়ি এলাকা থেকে। তাই  মামলাটি আজ মঙ্গলবার  নাইক্ষ্যংছড়ি থানায় দায়ের করা হয়েছে।
আর এদিকে, সোমবার (২৩ জানুয়ারি)  দুই পক্ষের তুমুল গোলাগুলির পর কুতুপালং ৭ নম্বর রোহিঙ্গা ক্যাম্প এলাকায় সংবাদ সম্মেলনে র‌্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক কমান্ডার খন্দকার আল মঈন জানান, পাহাড়ে-সমতলে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর তাড়া খেয়ে রোহিঙ্গা ক্যাম্পে আশ্রয় নিয়েছিল জঙ্গিরা।

ভালো লাগলে সংবাদটি শেয়ার করুন....

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2018 Bandarban Pratidin.com
Design & Developed BY CHT Technology